কন্টেন্ট রাইটিং কি পেশা হিসেবে নেয়া যাবে ? (নতুনদের জন্য কিছু কথা)

By | May 31, 2015

ফ্রীল্যান্সীং বা আউটসোরসিং !! অনেকে ভাবছেন কি শিখবেন, কি করবেন আবার অনেকে কোন রকমে শিখেই চেষ্টা করে যাচ্ছেন কিন্তু সফল হচ্ছেন না। আপনার সামনে অনেক সফল ব্যাক্তি থাকার কারনে হতাশা হয়তো আরও বেরে জাচ্ছে। আসলে আপনি সঠিক সময় অবধি অপেক্ষাই করতে পারছেন না। তারা কি একদিনে সফল হয়েছেন? হয়ত আপনাকে আর্থিক বা পারিপার্শ্বিক বিভিন্ন কারন ধৈরয বা সময় কোনটিই ব্যায় করতে দিচ্ছে না। আপনার জন্য বলছি, আপনি যদি ভাল ইংরেজি জানেন তো খুব কম সময়ের মধ্যে কন্টেন্ট বা আর্টিকেল রাইটিং করে কিছু আরনিং শুরু করতে পাড়েন। পড়ে সুযোগ বুঝে একে পার্ট টাইম থেকে ফুল টাইম করে নিতে পাড়েন। ভয় পাচ্ছেন? না না ভয়ের কিছু নেই-ইটস ভেরি সিম্পল।

  content Writing Career

কন্টেন্ট রাইটিং বলতে যা বুঝাতে চাচ্ছিঃ

লেখাটা যেহেতু নতুনদের জন্য তাই সহজ ভাবেই বলছি – আপনি যদি কন্টেন্ট রাইটিং এই প্রথম শুনে থাকেন তবুও আর্টিকেল রাইটিং নিশ্চয় শুনে থাকবেন। না শুনে থাকলেও সমস্যা নেই -শুনে নিন। বিভিন্য অথবা কোন একটি বিষয়ের উপর লেখা লেখি করা হচ্ছে আর্টিকেল রাইটিং। যেমন – খবরের কাগজে, ম্যাগাজিনে, অনলাইনে, কোন ওয়েবসাইট এর জন্য, কোন ভাষণ বা ক্লাশ লেকচার, কোন পণ্য বা অন্য কিছুর উপর আলোচনা বা সমালোচনা মুলক অথবা কোন এক শ্রেনিবিশেষ এর জন্য যে কোন লেখা হতে পারে। এইসব আর্টিকেল যখন কোথাও প্রকাশিত করা হয় তখন তাকে কন্টেন্ট বলে। আর হ্যা, আমি নতুনদের জন্য কোনভাবে গোজা মিল দিলাম কোন এক বিশেষ উদ্দেশ্যে। আর তা হল আমি এখানে শুধু অনলাইন কন্টেন্ট কে ফোকাস করে আলোচনা করব।

একমাত্র পেশা না পার্ট টাইম পেশা হিসেবে নিবেনঃ

 

কন্টেন্ট রাইটিং পার্ট টাইম না ফুল টাইম পেশা হিসেবে নেয়া যাবে এ প্রশ্ন আমাকে করলে আমি বলব এর কোনটিই নয় বরং একটি নেশা হিসেবে নিন। সঠিক সময়ে আপনি বুঝতে পারবেন এটি আপনার জন্য পেশা হিসেবে নেয়া ঠিক হবে কিনা।আর একটি কথা বলে রাখছি, অনলাইন জগতে সবচেয়ে বেশি চাহিদা কন্টেন্ট এর। এজগতটি যত বড় হচ্ছে রাইটারের আভাব ততই বাড়ছে। আর্থিক দৃষ্টিকোণ থেকে বলতে গেলে বলব আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে প্রতিদিন ২-৩ ঘণ্টা কাজ করে শুরুর দিকে ৫০০০-৭০০০ টাকা কামানো সম্ভব। আর্টিকেলের মান ভাল হলে ১০,০০০-১৫,০০০ টাকা কামানো সম্ভব। আর ফুল টাইমে এর পরিমান দাড়াতে পারে ২৫,০০০-৩০,০০০ টাকা। তবে আপনি যদি UpWork, Elance, Freelancer, Fiverr এর মত মার্কেটপ্লেসেগুলুতে কাজ করতে পাড়েন তবে প্রতি আর্টিকেলে $৩-$১৫ মূল্য পেতে পাড়েন। আমি পানির মত বলে গেলাম, আপনি কিন্তু পানির মত সোজা মনে করবেন না। এ সবের জন্য আপনাকে অবশ্যই একজন ভাল রাইটার হতে হবে।

 

কিভাবে শুরু করবেন বা ভয় পাচ্ছেন পারবেন কি না?

 

অনেকে আমাকে বলে আমি কিভাবে রাইটার হব, আমিতো তেমন কোন বিষয় সম্পর্কে জানিনা। একটা বিষয় সম্পর্কে ভাল না জেনে কিভাবে লেখা যায়? খুবই ভাল প্রশ্ন। আপনি যদি ভাল ইংরেজি জানেন তাহলেই রাইটার হতে পারেন, কিন্তু আপনাকে অবশ্যই এ ব্যাপারে ভাল কোন রাইটারের তত্ত্বাবধানে থেকে কিছুদিন প্র্যাকটিস করে যেতে হবে এবং তার পরামর্শ গ্রহন করতে হবে। দেখুন, আর্টিকেল দুই ধরনের হয়-নিউ রাইট আর্টিকেল এবং রিরাইট আর্টিকেল (বুঝতেই পারছেন ডিমান্ডও দুই ধরনের হবে)। রিরাইট নিয়ে কিছু লোকের নেগেটিভ ধারনা আছে। তাদের জন্য বলছি – যখন আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কোন বক্তব্য রাখেন তখন কিন্তু সকলেই (সাংবাদিক) একি বক্তব্য লিখেন। খবরের কাগজে কিন্তু সব এক থাকেনা, যে যার যার দক্ষতা বলে রিরাইট করে নিজেকে সেরা রাইটার বানিয়ে ফেলেন।

 

নিউ রাইট আর্টিকেল আবার দুই ভাবে লিখা যায়। ক) এক্ষেত্রে আপনাকে ওই বিষয়ের উপর ভাল ধারনা থাকতে হবে অথবা বিশেষজ্ঞ হতে হবে। যেমন, একজন ডাক্তার হেলথ টিপস লিখল অথবা কোন SEO Specialist টিউটোরিয়াল বা টিপস লিখল। খ) এক্ষেত্রে আপনাকে বিশেষজ্ঞ হতে হবে না। বিভিন্ন রিসোর্স ঘেঁটে অনেক স্বচ্ছ ধারনা(ত্রুটিমুক্ত ধারনা) নিয়ে নিজেই লিখতে পারেন যেকোনো বিষয়ে।

 

রিরাইট আর্টিকেল দুই ভাবে লেখা যেতে পারে। ক) কোন বিষয় সম্পর্কিত ৩-৪ আর্টিকেল থেকে বিশেষ ও গুরুত্ব পূর্ণ অংশগুলো নিয়ে একটি আর্টিকেলের রূপ দিতে হয়। তারপর উক্ত আর্টিকেলকে পড়ে বুঝে নিজের মত করে সাজিয়ে আরেকটি আর্টিকেলে রূপ দিতে হবে। খ) একটি আর্টিকেল থেকে বিশেষ ও গুরুত্ব পূর্ণ অংশগুলো ঠিক রেখে আরেকটি আর্টিকেলের রূপ দিতে হয় (খবরের কাগজের খবরের মত)। তবে কারও ধারনা রিরাইট আর্টিকেল মানে একটি আর্টিকেল কিছু কিছু জায়গায় পরিবর্তন করলেই হয়। ধারনাটা সত্যিই অনেক বিপদজনক। এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে যে, পুরবের আর্টিকেলের বিষয় ঠিক থাকলেও লেখা পুরোটাই আলাদা হতে হবে। একটি লাইনও হুবুহু ডুপ্লিকেট করা যাবে না। ভুলে ডুপ্লিকেট হয়ে গেল কিনা তা Plagiarism দিয়ে চেক দিতে হবে।

 

পরিশেষে সতর্ক করছি যে, এ পেশাতে সততার কোন বিকল্প নাই-একদিনের ভুল সারা জীবনের অবিশ্বাস। আশা করি মনে সাহস কিছুটা জন্মেছে, তাই নয় কি? এখনও যদি আপনার মনে ইচ্ছা না জন্মে থাকে তাহলে দুইটা হাত কিছু নেয়ার মত করে উপর দিকে তুলে বলুন – হায় আল্লাহ্, আমাকে সরল ও সঠিক পথ দেখাও।

আপনাদের আগ্রহ থাকলে আবার কোন দিন লিখার চেষ্টা করব-‘‘কিভাবে একটি আর্টিকেল সুন্দর ও আকর্ষণীও করতে হয়’’

ফেসবুকে আমি Alamgir SBS

নিয়মিত আর্টিকেল লেখার টিপস পাবেন আমার ব্লগে সবাইকে ধন্যবাদ।

2 thoughts on “কন্টেন্ট রাইটিং কি পেশা হিসেবে নেয়া যাবে ? (নতুনদের জন্য কিছু কথা)

  1. Pingback: কন্টেন্ট রাইটিং কি পেশা হিসেবে নেয়া যাবে ? (নতুনদের জন্য কিছু কথা) | অবিরতঃ প্রযুক্তি এবং বিনোদন এ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *